ব্রাউজার হাইজ্যাকিং ঠেকাবেন যেভাবে

ইন্টারনেটে সার্চ করতে গিয়ে দেখলেন কোনো কারণ ছাড়াই ব্রাউজার আপনাকে পর্ণ সাইটে নিয়ে হাজির করছে কিংবা ব্রাউজার আটকে যাচ্ছে। গুগল, ইয়াহুতে যাবেন, অথচ চলে যাচ্ছেন অনাকাঙ্ক্ষিত সাইটে। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, সম্ভবত আপনি ব্রাউজার হাইজ্যাকিং ভাইরাসের শিকার হয়েছেন। আপনার ব্রাউজারে ক্ষতিকর ভাইরাস বা প্রোগ্রাম ইনস্টল হয়ে গেছে।
এ ধরনের ভাইরাস থাকার লক্ষণ হচ্ছে ব্রাউজার অচল হয়ে যাওয়া, পেজ একেবারে লোড না হওয়া, কিছু কিছু প্রোগ্রাম চালু না হওয়া, ইন্টারনেটের গতিধীর হয়ে যাওয়া, ওয়েব পেজ থেকে বিরক্তিকর অদ্ভুত বিজ্ঞাপন পপ-আপ আকারে দেখাতে শুরু করা ইত্যাদি।
বিশেষজ্ঞরা বলছেন, ব্রাউজার হাইজ্যাকিং বিষয়টি এখন আর দুরূহ কিছু নয়। সাইবার দুর্বৃত্তরা বিশ্বজুড়ে সাধারণ ইন্টারনেট ব্যবহারকারীদের ব্রাউজার হাইজ্যাক করে নানা সমস্যায় ফেলছে। সম্প্রতি এ ধরনের আক্রমণ বেড়ে গেছে। তাই ব্রাউজার হাইজ্যাকিং বিষয়ে সচেতন থাকা উচিত।
ব্রাউজার হাইজ্যাকিং কী?
ব্রাউজার হাইজ্যাকিংয়ে ব্যবহৃত হয় ‘ব্রাউজার রিডিরেক্ট’ ভাইরাস। এটি সাইবার হুমকি হিসেবে ব্রাউজার হাইজ্যাকার বিভাগের মধ্যে পড়েছে। এ বিভাগের মধ্যে যে প্রোগ্রামগুলো পড়ে, তার মধ্যে রয়েছে সার্চ ইঞ্জিন, প্রতারণাপূর্ণ অ্যাড-অন ও এক্সটেনশন। এ ধরনের ভাইরাস ব্যবহারকারীর অজান্তে সিস্টেমে ডাউনলোড হয়ে যায়। এর মধ্যে থাকা লুকানো বান্ডেল ব্যবহার করে তা দ্রুত ছড়াতে থাকে।
সাইবার নিরাপত্তা প্রতিষ্ঠান ই-স্ক্যানের তথ্য অনুযায়ী, ব্রাউজার হাইজ্যাকিংয়ের শিকার হলে ইন্টারনেট ব্রাউজিংয়ের সময় নানা সমস্যা দেখা দেয়। কাঙ্ক্ষিত ওয়েবসাইটের বদলে আরেক সাইটে নিয়ে গিয়ে অপ্রীতিকর বিজ্ঞাপন দেখায়। পেজ লোড হতে চায় না। ব্রাউজার বন্ধ হয়ে যায়। এ ভাইরাস সহজে ব্যবহারকারীর ব্রাউজিং অভ্যাস ট্র্যাকিং করে তথ্য সংগ্রহ করতে শুরু করে। এতে স্প্যামসহ বিভিন্ন বিরক্তিকর সমস্যা দেখা দেয়।

যেভাবে সমাধান
বিশেষজ্ঞদের পরামর্শ হচ্ছে, কন্ট্রোল প্যানেলের স্ক্রিন থেকে অ্যাড/রিমুভ প্রোগ্রামস বা ‘আনইনস্টল আ প্রোগ্রাম’-এ ক্লিক করতে হবে। সম্প্রতি ইনস্টল করা প্রোগ্রামগুলোর মধ্যে স্ক্রল করে Quiknowledge, LyricsSay-1, Websteroids, BlocckkTheAds, HD-Plus 3.5 এ রকম প্রোগ্রাম পেলে তা মুছে দিতে হবে। এ ছাড়া অনাকাঙ্ক্ষিত কোনো প্রোগ্রাম ইনস্টল হয়ে আছে কি না, তা পরীক্ষা করে দেখে মুছে দিতে হবে। সাম্প্রতিক সময়ে ইনস্টল হওয়া অ্যাপ্লিকেশন বা অপরিচিত প্রোগ্রামগুলো খুঁজে দেখে তা দরকারি না হলে আনইনস্টল করে ফেলতে হবে। ব্রাউজারে অনাকাঙ্ক্ষিত ও অপ্রয়োজনীয় এক্সটেনশন ফেলে দিতে হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *