মুস্তাফিজের ছবিতে লাইকে এর বন্যা

‘ফিজের বোলিং অ্যাকশন দেখার জন্য আপনি প্রস্তুত তো? এবারের আইপিএলে সান রাইজার্স হায়দরাবাদের হয়ে বল হাতে বিপ্লব ঘটাচ্ছেন তিনি।’ —এটি সান রাইজার্স হায়দরাবাদের ফ্যানপেজের স্ট্যাটাস। গতকাল মুস্তাফিজের বোলিং অ্যাকশনের ছবি দিয়ে এই স্ট্যাটাসটি দেওয়া হয়েছে। মজার ব্যাপার হচ্ছে, স্ট্যাটাসটি দেওয়ার পরই লাইক, কমেন্টে ভেসে যাচ্ছে।

গতকাল ছিল দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ারে গুজরাট লায়ন্সের বিরুদ্ধে হায়দরাবাদের ‘ডু অর ডাই’ ম্যাচ। ম্যাচের আগেই দেওয়া হয়েছিল ওই স্ট্যাটাস। কিন্তু হ্যামস্ট্রিং ইনজুরির কারণে গতকাল গুজরাটের বিরুদ্ধে খেলতে পারেননি মুস্তাফিজ। খেলতে না পারলেও এবারের আইপিএলে বল হাতে বিপ্লব ঘটিয়ে দিয়েছেন মুস্তাফিজ। বাংলাদেশি এই বোলারকে ব্যাটসম্যানরা যেভাবে সমীহ দেখিয়েছেন, এমন সমীহ পাননি অন্য কোনো বোলার।

শুধু উইকেট প্রাপ্তির দিকে তাকিয়ে এমন একজন বোলারকে বিচার করা যায় না। তা ছাড়া মুস্তাফিজ খুব কম উইকেট পেয়েছেন তাও নয়। কাল রাতের ম্যাচের আগ পর্যন্ত তার ঝুলিতে ছিল ১৬ উইকেট। তবে প্রতি ম্যাচে উইকেট না পেলেও কিপটে বোলিং করে দলের জয়ে বড় ভূমিকা রাখছেন প্রায় প্রতি ম্যাচেই। মুস্তাফিজ বল হাতে তুলে নিলে প্রতিপক্ষ ব্যাটসম্যানের বুকে কাঁপন ধরে যায়। গ্যালারিতে ওঠে গর্জন। ধারাভাষ্যকারদের কণ্ঠের জোর কেমন যেন বেড়ে যায়।

ন্যূনতম ২০ ওভার বোলিং করেছেন, এমন বোলারের মধ্যে সবচেয়ে হিসাবি বোলার মুস্তাফিজ। কালকের আগে খেলা ১৫ ম্যাচে তিনি ওভার প্রতি রান দিয়েছেন ৬.৭৩ গড়ে। মোট ৫৭ ওভার বোলিং করেছেন। মুস্তাফিজ ডট বল দেওয়ায় ওস্তাদ। তিনি কখন কাটার দেবেন, কখন বলের গতি কমিয়ে দেবেন তা একটুও টের পায় না ব্যাটসম্যানরা। অন্য পেসাররা যখন স্লোয়ার দেন তখন তাদের কব্জির দিকে তাকিয়েই আঁচ করতে পারেন ব্যাটসম্যানরা। কিন্তু মুস্তাফিজের বোলিং অ্যাকশন দেখে তা বোঝা যায় না। দ্রুত গতির বল করতে করতে হঠাৎ মুস্তাফিজ যখন স্লোয়ার দিয়ে বসেন তখন বিভ্রান্ত হয়ে যান ব্যাটসম্যানরা। তাই তো দেখা যায়, স্ট্যাম্পের বাইরে বল থাকলে এমন সময় তা খেলা থেকে বিরত থাকেন ব্যাটসম্যানরা।

বল কাট করাতে পারেন অনেকেই। কিন্তু কব্জির পরিবর্তন না করে স্লোয়ার দিতে পারেন না অন্যরা। তাই কাটারের চেয়েও মুস্তাফিজের স্লোয়ার অনেক ভয়ঙ্কর।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *