সাগরের নিচে পথ তৈরি করছে ফেসবুক-মাইক্রোসফট

বৈশ্বিক ইন্টারনেট সেবা বদলে দিতে যাচ্ছে বিশ্বের শীর্ষ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক ও মাইক্রোসফট। আর এ জন্য সমুদ্রের তলদেশকে বেছে নিয়েছে উভয় কোম্পানি। যুক্তরাষ্ট্রের পূর্ব উপকূল থেকে শুরু করে স্পেন তক গড়ে তুলছে প্রাইভেট ইন্টারনেট নেটওয়ার্ক।

আর আটলান্টিক মহাসগরের তলদেশ দিয়ে ফাইবার ক্যাবল স্খাপনের জন্য ইতোমধ্যেই নিয়োগ করা হয়েছে স্পেনের টেলিকম কোম্পানি টেলিফোনিকাকে। আগামী আগস্ট মাস থেকে সরেজমিন কাজ শুরু করবে প্রতিষ্ঠানটি। কাজ শেষ হবে ২০১৭ সালের অক্টোবরে।

স্থানীয় সময় বৃহস্পতিবার মাইক্রোসফট ও ফেসবুক এ তথ্য প্রকাশ করেছে।

জানা গেছে, ব্যবহারকারীদের জন্য নিরবিচ্ছিন্ন সরাসরি সম্প্রচার সুবিধা এবং তাদেরকে ভার্চুয়াল রিয়েলিটির দুনিয়ায় নিয়ে যেতে প্রয়োজনীয় ব্যন্ডউইথ ঘাটতি মেটাতে ফেসবুক এই প্রকল্পে অগ্রণী ভূমিকা রাখছে।

সূত্রমতে, গুরুত্বপূর্ণ বৈশ্বিক ইন্টারনেট জাংশন পয়েন্ট হিসেবে বিবেচিত যুক্তরাষ্ট্রের ভার্জেনিয়া থেকে শুরু করে স্পেনের বিলবো পৌঁছতে নতুন এই ইন্টারনেট মহাসড়কটি ইউরোপ, আফ্রিকা, মধ্যপ্রাচ্য এবং এশিয়াকেও সংযুক্ত করবে। ফেসবুক ও মাইক্রোসফটও এর দাবি, নির্মিতব্য ইন্টারনেট মহাসড়ক দিয়ে সরবরাহকৃত ব্যন্ডউইথ হবে এখন পর্যন্ত আটলান্টিকের তলদেশ দিয়ে সঞ্চালিত সর্বোচ্চ ব্যান্ডউইথ।

এই মহাসড়কটি ফেসবুক ও মাইক্রোসফট ছাড়াও অন্যদের কাছে ভাড়া দিতে পারে ইন্টারনেট সেবাদাতা প্রতিষ্ঠান টেলিফোনিকা। তবে সড়কটি দিয়ে ক্ষিপ্র গতিতে ডেটা পরিবহনে মাইক্রোসফট অগ্রাধিকার পাবে।

প্রসঙ্গত, আমেরিকা ও ইউরোপের মধ্যে ইন্টারনেট সেবা দিতে বর্তামনে সমুদ্রের তলদেশ দিয়ে এক ডজনেরও বেশি সড়ক রয়েছে। তথ্যসূত্র-টাইম্‌স

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *